লক্ষণীয় বিষয় সমূহ ও সীমাবদ্ধতা


হাইড্রোপনিক পদ্ধতির সাফল্য নির্ভর  করে এর উপযুক্ত এবং যথাযথ ব্যবস্থাপনার উপর। হাইড্রোপনিক পদ্ধতিতে সাফল্যজনকভাবে ফসল উৎপাদনের জন্য নিম্নলিখিত বিষয়গুলির উপর বিশেষ নজর রাখতে হবেঃ

ক) EC এবং pH এর মাত্রাঃ সাধারণতঃ pH এর মাত্রা ৫.৮-৬.৫ এবং EC এর মাত্রা ১.৫-২.৫ ds/m এর মধ্যে রাখতে হবে। উল্লিখিত মাত্রার বাইরে চলে গেলে গাছের শিকড় মারাত্নকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হবে। মনে রাখতে হবে আকস্মিকভাবে জলীয় খাদ্য দ্রব্যণের ph এবং EC পরিবর্তন করা যাবে না।
খ) গাছের  খাদ্য উপাদানের প্রয়োজনীয়তা, স্বল্পতা কিংবা আধিক্য গাছের স্বাস্থ্য ও পাতার রং দেখে বুঝা যায়। খাদ্য উপাদানের অভাবের লক্ষণ দেখে প্রয়োজন অনুসারে তা যোগ করে অভাব দূর করতে হবে। এ জন্য প্রতিটি উপাদানের অভাব জনিত লক্ষণ সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান থাকতে হবে।
গ) দ্রবণের আদর্শ তাপমাত্রা রক্ষা করতে হবে। সাধারণত দ্রবণের তাপমাত্রা ২৫-৩০ ডিগ্রী সে. এর মধ্যে হওয়া বাঞ্ছনীয়। যদি দ্রবণের তাপমাত্রা বেড়ে যায় তবে শ্বসনের (Respiration) হার বেড়ে যায়, ফলে অক্সিজেনের চাহিদাও দারুনভাবে বাড়ে। এবং দ্রবণে অক্সিজেন এর পরিমাণ কমে যায়। সাধারণত দুপুরে তাপমাত্রা কমানোর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।
ঘ) জলীয় খাদ্য দ্রবণে অতিরিক্ত অক্সিজেন সরবরাহের ব্যবস্থা করতে হবে। কারণ অক্সিজেন এর অভাবে গাছের শিকড় নষ্ট হয়ে যায় এবং ফলন মারাত্নকভাবে কমে যায়।
ঙ) চাষের স্থানে পর্যাপ্ত আলোর সুব্যবস্থা থাকতে হবে এবং রোগমুক্ত চারা ব্যবহার করতে হবে। কোন রোগাক্রান্ত গাছ দেখা গেলে সাথে সাথে তা তুলে ফেলতে হবে।
চ) চাষকৃত ফসলে বিভিন্ন পোকা মাকড়ের আক্রমণ দেখা দিতে পারে, এদের মধ্যে এফিড, লিফ মাইনার, থ্রিপস এবং মাকড় অন্যতম। প্রতিদিন তদারকির মাধ্যমে এদের দমনের ব্যবস্থা নিতে হবে।

সীমাবদ্ধতা
ক) দ্রবণ প্রস্তুতি, দ্রবণের অম্লত্ব ও ক্ষারত্ব (pH), Electric Conduvtivity (EC) বিভিন্ন খাদ্যোপাদানের অভাব জনিত লক্ষণসমূহ সনাক্তকরণ ও প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দক্ষতা ও অভিজ্ঞতা প্রয়োজন।
খ) এ পদ্ধতির চাষে কখনও কখনও নেট হাউস (Net House) বা গ্লাস হাউজের (Glass House) প্রয়োজন হয় বিধায় প্রাথমিক খরচ কিছূটা বেশি হয়ে থাকে। এমনকি নেট হাউস বা গ্লাস হাউজের ভিতরের তাপমাত্রা বেশি হওয়ার কারণে ফলন কমে যেতে পারে।
গ) সব ধরনের ফসল এ পদ্ধতিতে চাষ করা যায় না এবং এ পদ্ধতির চাষে কারিগরি জ্ঞান, দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার বিশেষ প্রয়োজন।