নার্সারীর গুরুত্ব

ইন্টারকোঅপারেশন - এএফআইপি প্রকল্পের সৌজন্যে আপডেটকৃত

                  

আধুনিক কৃষিতে নার্সারীর গুরুত্ব অপরিসীম। নার্সারী ছাড়া কৃষি কাজ অসম্পূর্ণই বলা চলে। এর প্রধাণ কাজ হলো চারা উৎপাদন ও চারার যত্ন নেয়া। তবে প্রকৃতপক্ষে নার্সারীতে বীজ উৎপাদন, অংগজ চারা উৎপাদন, বিভিন্ন রোপন দ্রব্য সংগ্রহ ও সংরক্ষণ, জাত উৎপাদন, ক্ষণস্থায়ী গাছের ব্যবস্থাপনা, স্থায়ী গাছের ও বীজ উৎপাদনকারী মাতৃগাছের সঠিক পরিচর্যা করা ইত্যাদি কর্মকান্ড করা হয়। নার্সারি কেবল উন্নতমানের বীজ ও চারার সরবরাহই নিশ্চিত করেনা জনগনের কর্মসংস্থাসহ পরিবেশের ভারসাম্যও রক্ষা করে। যে এলাকায় ভাল নার্সারী আছে সে এলাকায় গাছ-পালা, ফুল-ফল ও শাক-সবজির সরবরাহ বেশী থাকে। ফলে মানুষের শারিরীক ও মানসিক স্বাস্থ্য ভাল থাকে।
নার্সারীর অর্থনৈতিক গুরুত্বও অনেক। ছোট ছোট নার্সারী থেকে বছরে লাখ লাখ টাকা আয় করা সম্ভব। কারণ একবর্গমিটার জায়গায় কয়েক হাজার চারা উৎপাদন করা যায়। অনেক চারা বিক্রয়ের উপযোগী করতে মাত্র ৩/৪  সপ্তাহ সময় লাগে। আগাম চারা উৎপাদন করতে পারলে লাভও কয়েকগুন বেড়ে যায়। একটি ভাল নার্সারী থেকে অল্প সময়ে প্রচুর অর্থ উপার্জন করা যায়। তাই নার্সারী স্থাপন করে নিজে লাভবান হওয়া যায়, পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষা করা যায় এবং দেশকে সমৃদ্ধশালী করে গড়ে তোলা যায়।